1. [email protected] : গল্পের রাজ্যের রাজা : গল্পের রাজ্যের রাজা
সফলতার গল্প । শুনলে আপনিও বিস্মৃত হয়ে যাবেন । পর্ব ১ » TECH TEN
বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন ২০২১, ০২:১৮ পূর্বাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English

সফলতার গল্প । শুনলে আপনিও বিস্মৃত হয়ে যাবেন । পর্ব ১

  • Update Time : শুক্রবার, ১৫ জানুয়ারী, ২০২১
সফলতার গল্প

আমার নাম ইমরান। আমার বয়স এখন ২১ বছর। আজ আমি আপনাদের আমার স্বপ্ন তার গল্পটি শেয়ার করতে যাচ্ছি। আমার বাসা হচ্ছে বরিশালে। আমি একজন মধ্যবিত্ত ফ্যামিলির সদস্য। আমরা গ্রামেই থাকি। আমার দাদা বাড়ি বরিশালে। আমি সহ আমরা ৩ ভাই বোন।আমরা মধ্যবিত্ত হলেও আমাদের খুবই টাকার অভাব থাকে। আসলে কিছু মানুষ আছে যারা বলতে পারে না আবার সহ্য করতে পারেনা তাদের মধ্যে আমরা একজন। আমাদের মান ইজ্জত নিয়ে আমরা কারো কাছে হাত পাততাম না! প্রয়োজনে না খেয়ে দিন কাটাতাম কিন্তু মানুষের কাছে যেয়ে খেতে পারতাম না।

তাও ছিলাম আমরা একটা সুখী ফ্যামিলি। এককথায় আমাদের সবার মধ্যে খুব ভালোবাসা ছিল।বিশেষ করে লেখাপড়ার দিক দিয়ে আমরা ছিলাম গ্রামের সবার থেকে এগিয়ে। গ্রামের সবার থেকে এগিয়ে থাকার কারণেই মূলত আমরা কারো সাথে আমাদের কষ্টের সময় গুলো শেয়ার করতাম না। সবাই জানত যে আমরা পারফেক্ট আছি একদম ঠিকঠাক আছি। কিন্তু না বাইরে আমরা ঠিকঠাক থাকলেও আমাদের ছিল প্রচণ্ড অভাব। এমনও দিন আমাদের ছিল শুধু একবেলা খেয়ে বাকি দিনগুলো ভুলেই যেতাম। আমি হচ্ছি মেজ।

আমার বড় ভাই এখন বর্তমানে সরকারি চাকরি রত অবস্থায় আছে। আর আমাদের এক্স ছোট বোন আছে ও এখনও লেখাপড়া করছে। এখন আমাদের আর কোনো অভাব নেই এখন আমরা সম্পূর্ণ সুখী একটা ফ্যামিলি। আমরা যদি ঠিক ৫ বছর আগের ঘটনাগুলো শেয়ার করি তাহলে বুঝবেন আমরা কত সুখে ছিলাম। ৫ বছর আগের ঘটনাগুলো ছিল আমাদের ফ্যামিলির সকলের জীবনের স্মরণীয় দিন। প্রত্যেকটা দিন ছিল আমাদের জীবনের কষ্ট করে দিন। আজ ঠিক ৫ বছর পর আমরা সবাই সফল। এখন আমরা তিন বেলা খেতে পারি। মানুষের সামনে মাথা তুলে হাঁটতে পারি। মানুষকে বড় কথা গুলো বলতে পারি। এখন আমরা সবাই সফল।ঠিক পাঁচ বছর আগের ঘটনাঃ আমি তখন পড়তাম হাই স্কুলে নবম শ্রেণীতে। বুঝতেই পারছেন স্কুলের প্রতি মাসে বেতন সহ বিভিন্ন খরচ আব্বুর বহন করতে হতো।

সেই সাথে আমার বড় ভাইয়া তখন পড়তো কলেজে, ইন্টার সেকেন্ড ইয়ারে। দুইটা ছেলেকে লেখাপড়া করানোর জন্য পর্যাপ্ত ব্যয় বহন করতে হতো, যা আব্বুর জন্য পর্যাপ্ত কষ্টকর ছিল। এটা চিন্তা করে সে কষ্ট গুলো সহ্য করে নিতো। ঠিক সেই স্বপ্নগুলো আজ বাস্তবে পরিণত হচ্ছে। বাস্তব জিনিসটা খুবই ভয়ংকর।যাইহোক! আমাদের খুব কষ্টে দিনগুলো কাটতে থাকে। আর এখন চাকরির বাজার খুবই গরম। একটি চাকরি নিতে হলে সেখানে ঘুষ দিতে হয় মিনিমাম ১০ লক্ষ টাকা। ভেবে দেখছেন একটা মধ্যবিত্ত অভাবহীন ফ্যামিলির কাছে ১০ লক্ষ টাকা কি? এভাবে হয়তো আজও অনেক ফ্যামিলি পড়ে আছে যারা উচ্চশিক্ষায় শিক্ষিত কিন্তু টাকার অভাবে কোন চাকরি গ্রহণ করতে পারছে না। হ্যাঁ আমরাও ছিলাম এরকম টাকার অভাবে ছাত্রী গ্রহণ করা সম্ভব হচ্ছিলো না। কিন্তু আল্লাহর অশেষ রহমতে আমরা পেয়ে যাই একটি দারুন উপায়। শনিবার সকালের পেপারে দেখলাম নিয়োগ দিচ্ছে পুলিশে চাকরির জন্য।

যদিও বিষয়টা অবাস্তব থেকে যাবে সেটা মনে করেই নিয়োগে এটেন্ড করলো বড় ভাই। অবশ্য এর আগে অনেকগুলো নিয়োগ এডমিট করা সত্বেও রিজেক্ট হয়েছিল। যাই হোক ওইদিন টাই ছিল আমাদের জীবনের একটা ইতিহাস। মেসেজের মাধ্যমে এটেন্ড করায়, তারা অ্যাকসেপ্ট করে নেয়। পরে লাইনে গিয়ে দাঁড়াতে হয়। এখন হচ্ছে টাকার পালা। যত কথা তত টাকা। কিন্তু আমরা কিভাবে টাকা ম্যানেজ করব আমাদের তো পর্যাপ্ত থাকার ব্যবস্থা নেই। এখানে পড়ে গেলাম বড় ফ্যাসিলিটিতে। যেভাবে হোক চাকরির একটা দফারফা করতেই হবে। সব বিষয়গুলো মাথায় রেখে শুরু করলো ব্যাংক থেকে লোন নেয়া। এখানে অনেক ঢুকবেন সহ বিভিন্ন প্রমান সহ অনেকে সাক্ষী নিয়ে তুললাম ৫ লক্ষ টাকা।

এই পাঁচ লক্ষ টাকা কাজে আসবে নাকি হুদাই জলে যাবে নাকি চাকরি হবে তা এখনও নিশ্চিত নয়।অনিশ্চিত অগ্রযাত্রা! লাইনে থাকার পর ভাইভা। সেখানে দিতে হবে টাকা নয় তো তারা দিবে রিজেক্ট করে। সেখানে যেতে হল টাকা। এভাবে টাকার মাধ্যমে প্রতিটা ধাপ পেরিয়ে যেতে হলে একদম সর্বশেষ ধাপে যেখানে রয়েছে টাকা খাওকো রাক্ষস।সফলতার গল্পের বাকি অংশগুলো আমরা পরবর্তী পরবর্তী আপনাদের সাথে শেয়ার করব। আমাদের এই সফলতার গল্পটির পরবর্তী পর্ব জানতে এবং পড়তে এখানে ক্লিক করুন। সফলতার গল্প প্রথম অংশটি ভালো লাগলে অবশ্যই আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন। সেই সাথে আপনার সফলতার গল্পটিও আমাদের সাথে শেয়ার করতে পারেন আমরা তুলে ধরব মানুষের সামনে। ধন্যবাদ দেখা হচ্ছে পরবর্তী পর্বে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2019 Tech Ten
Theme Customized By BreakingNews